,

সাড়ে ৬ বছরের আদিবা সাত মাসে পুরো কোরআন মুখস্থ করেছে

isbg_751118252

পবিত্র কোরআনে কারিম আল্লাহতায়ালা কর্তৃক নাজিলকৃত সর্বশেষ ও সর্বশ্রেষ্ঠ আসমানি কিতাব। আল্লাহতায়ালা কোরআনকে অবতীর্ণ করেছেন সৃষ্টি জগতের সামগ্রিক কল্যাণের উদ্দেশ্য।

কোরআন নাজিলের পর থেকে আজ অবধি কোরআন অবিকৃত অবস্থায় রয়েছে। যুগ পরম্পরায় পবিত্র কোরআন মুখস্থ করে স্মৃতিপটে ধরে রেখেছেন অগণিত মানুষ। যাদেরকে আমরা হাফেজে কোরআন নামে চিনি।

তবে এবার আমরা এক ব্যতিক্রমী বিস্ময় হাফেজের সন্ধান পেয়েছি। যে মাত্র মাত্র সাড়ে ছয় বছর বয়সে পবিত্র কোরআনে কারিম হেফজ করে বিস্ময় সৃষ্টি করেছে।

ছয় বছর বয়সী বিস্ময় শিশু আদিবা তাসনিম এমন কীর্তি গড়েছে। এটা আল্লাহতায়ালার অসীম কুদরতই বটে। যে মেয়েটি মাথার কাপড় ঠিকমতো দিতে পারে না, সেই মেয়ে পুরো কোরআন মুখস্থ করেছে সহিহ-শুদ্ধভাবে।

আদিবা যাত্রাবাড়ীর হাফেজ কারী নেছার আহমাদ আন নাছিরী পরিচালিত মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসা থেকে মাত্র সাত মাসেই পবিত্র কোরআনে কারিম হেফজ করেছে।

পবিত্র কোরআন হিফজ শেষে (মুখস্থ) আদিবা এখন ওই মাদরাসায় ভাষাশিক্ষা কোর্সে অধ্যয়ন করছে। আদিবার এ অনন্য কৃতিত্বের জন্য তাকে ও তার শিক্ষকদের ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ২৫ অক্টোবর (রবিবার) সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।



আদিবার বাবা হাফেজ মাওলানা নাছিরুদ্দীন খান এবং মা হেলেনা আক্তার। আদিবা বরিশালের মেয়ে। দুইবোনের সংসারে আদিবা বড়।

আদিবা বড় হয়ে কোরআন গবেষণায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চায়। আদিবা দেশবাসীর দোয়াপ্রার্থী। (সূত্র- বাংলা নিউজ)

পোস্টটি ফেসবুক এ শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ দিন। আপনার প্রয়োজনীয় সব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে প্রয়োজন২৪.কম পেইজ এ লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন।

Share Button