,

সন্তানদের রাজি করিয়ে এফডিসিতে দিতিকে শেষ শ্রদ্ধা

দিতিকেদিতিকে

মেয়ে লামিয়া চৌধুরীর অনেক ক্ষোভ চলচ্চিত্রের মানুষদের প্রতি। ক্ষোভের কারণ, তার মা দিতি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে পড়ে থাকার দিনগুলোতে তেমন কেউ দেখা করতে আসেননি। তাই গতকাল রোববার রাতে যখন দিতিকে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য তার মরদেহ এফডিসিতে নেয়ার দাবি উঠল আপত্তি তুললেন লামিয়া।

শেষ পর্যন্ত চিত্রপরিচালক গুলজার, এস এ হক অলীক, চিত্রনায়ক রিয়াজ, ওমর সানী, চিত্রনায়িকা ববিতা, মৌসুমী ও অারো কয়েকজনের অনুরোধে লামিয়া রাজি হন।

অবশেষে নির্ধারিত সময় সোমবার সকাল ১০টায় শেষবারের মতো এফডিসিতে এসেছিলেন চিত্রনায়িকা দিতি। প্রিয় নায়িকাকে দেখতে সোমবার সকালে এফডিসি প্রাঙণে ছুটে এসেছিলেন তার চলচ্চিত্র সহকর্মী, সাংবাদিক ও ভক্তরা। এসেছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, মুশফিকুর রহমান গুলজার, নায়ক আলমগীর, ওমর সানী, নায়িকা চম্পা, মিজু আহমেদ, নায়ক রুবেল, এস এ হক অলিক`সহ অনেকে।

তারা খুব কাছের, খুব প্রিয়, খুব পছন্দের দিতিকে অশ্রুজলে ভেজা ফুলেল শুভেচ্ছায় বিদায় জানালেন। করলেন কতো শতো স্মৃতিচারণ। সেইসব শুনে শুনে এফডিসির জহির রায়হান কালার ল্যাবের চত্বরটি হয়ে উঠেছিলো দিতিময়।

সবকিছুরই শেষ আছে। দিতিকে চলে যেতে হবে অনেক দূরে। তার শুভ যাত্রা কামনায় ১০টা ১৫ মিনিটে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় জানাজা।



জানাজা শেষে দিতির মরদেহ নিয়ে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স রওনা দেয় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের দপ্তপাড়া গ্রামের পথে; যেখানে দিতির জন্ম। সেখানেই শেষ শয্যায় সমাহিত হবেন তিনি। তার আগে জোহর নামাজের পর অনুষ্ঠিত হবে দিতির তৃতীয় জানাজা।

দিতিকে নিয়ে চলে গেল অ্যাম্বুলেন্স। স্মৃতির হাজার কবিতা বুকে নিয়ে পড়ে রইল দিতির প্রিয় আঙ্গিনা এফডিসি। নির্বাক হয়ে পড়ে রইল তার প্রিয় মানুষেরা। চম্পা, ববিতা, আলমগীর, দিলারা, খালেদা আক্তার কল্পনা, আহমেদ শরীফরা দিতির চলে যাওয়ার দিকে তাকিয়ে চোখ মুছতে মুছতে বুঝি ভাবছিলেন- বিদায় দিতি। আর কোনোদিন দেখা হবে না, কথা হবে না। অদেখা ভুবনে ভালো থেকো তুমি।

পোস্টটি ফেসবুক এ শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ দিন। আপনার প্রয়োজনীয় সব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে প্রয়োজন২৪.কম পেইজ এ লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন।

Share Button