,

কক্সবাজারের দায়িত্ব ছাড়লেন রেকর্ড সৃষ্টিকারী যুগ্ম জেলা জজ মাহাবুবুর রহমান

ফাইল ছবিফাইল ছবি

কক্সবাজার: কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের ইতিহাসে রেকর্ড সৃষ্টি করে গেলেন যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালতের বিচারক মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান। তিনি কক্সবাজারে যোগদানের পর থেকে ১১ মাসে ১ হাজার ৩৪২টি মামলা নিষ্পত্তি করেছেন। পাশাপাশি আইনজীবী ও বিচার প্রার্থীদের সাথে সুন্দর ব্যবহার এর মাধ্যমে সকলের মন জয় করতে সক্ষম হন। ফলে আইনজীবীদের বিদায় সংবর্ধনার মাধ্যমে প্রমাণিত হল তিনি একজন অসাধারণ বিচক্ষণ বিচারক ছিলেন।

জানা যায়, যুগ্ম জেলা জজ ১ম আদালত ৩নং স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল এর বিচারক মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান ২০১৫ সালের ২০ জানুয়ারি কক্সবাজার আদালতে যোগদান করেন।

যোগদানের পর থেকে ২০১৬ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মাত্র ১ বছর কঠোর পরিশ্রম ও আন্তরিক দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দীর্ঘ দু’যুগ ধরে পড়ে থাকা মামলাগুলির জট কমানোর চেষ্টা করেন। এরই ধারাবাহিকতায় ৫৩৪টি দেওয়ানী ও ৮০৮টি ফৌজদারী মামলা নিষ্পত্তি করতে সক্ষম হন। এর ফলে জেলার গ্রামগঞ্জে অসহায়, গরীব বিচারপ্রার্থীগণ অনির্দিষ্ট হয়রানি থেকে মুক্তি পান। এ সকল কারণে তিনি বিচারপ্রার্থী তথা জেলাবাসীর অন্তরে স্থান করে নেন। তাঁর বদলীতে জেলাবাসী একজন গুরুত্বপূর্ণ বিচারিক অভিভাবককে হারিয়েছেন, এমন মন্তব্য করেন গ্রামগঞ্জ থেকে আসা বিচারপ্রার্থীগণ।

তাঁর বিদায়ে নিরাশ হয়েছেন দীর্ঘদিন ধরে মামলার জটে আটকে থাকা বিচারপ্রার্থীরা। তার বিদায়ে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতি প্রথম বারের সফল ও অমায়িক বিচারককে সংবর্ধনা দিয়ে সম্মানিত করেছেন। যেটা কক্সবাজারে এই প্রথম।

এ বিষয়ে জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাহী সদস্য এড. রমিজ আহমদ বলেন, এর আগে আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে কোন বিচারককে বিদায়ী সংবর্ধনা দেয়া হয়নি। তাঁর সততা, নৈতিকতা, দক্ষতা ও আইনজীবীদের সাথে অমায়িক ব্যবহারের তিনি এটি আদায়ে সমর্থ হয়েছেন। উল্লেখ্য, মাহবুবুর রহমান কক্সবাজার জেলা থেকে বদলী হয়ে পিরোজপুর জেলা জজ আদালতে একই পদে যোগ দিচ্ছেন।  তিনি ২০০৬ সালের ১৫ জানুয়ারি বিচার বিভাগে যোগদানের পর দেশের বিভিন্ন আদালতে দায়িত্ব পালনকালীন ২০০৮ থেকে ২০১৫ সালে প্রায় ৮ হাজার বিভিন্ন মামলা নিষ্পত্তি করেন।



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাশ করা মাহবুবুর রহমান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে মেধাতালিকায় (স্ট্যান্ড) স্থান করে উত্তীর্ণ হন। চট্টগ্রামের বাশঁখালীর এ মেধাবী বিচারক দেশের আলোচিত দশট্রাক অস্ত্র মামলায় টানা ১৪ ঘন্টা জবানবন্দী রেকর্ড করে আলোড়ন সৃষ্টি করেন। তিনি সেসময় চট্টগ্রাম চীফ মেট্রোপলিটন আদালতে দায়িত্বরত ছিলেন।

পোস্টটি ফেসবুক এ শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ দিন। আপনার প্রয়োজনীয় সব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে প্রয়োজন২৪.কম পেইজ এ লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন।

Share Button