,

যুদ্ধাপরাধী নিজামীর মৃত্যু পরোয়ানা জারি

ফাসি-নি-নিজামীর

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় একাত্তরের গুপ্তঘাতক আলবদর বাহিনীর নেতা ও জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। মঙ্গলবার নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল রেখে আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হওয়ার পর এই মৃত্যু পরোয়ানা জারি করা হয়।
মঙ্গলবার বিকেলে নিজামীর ফাঁসি বহালের পূর্ণাঙ্গ রায় সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কার্যালয় থেকে প্রকাশিত হয়। এরপর সন্ধ্যায় তা পৌঁছায় ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে। এরপর প্রক্রিয়া শেষে নিজামীর মৃত্যু পরোয়ানায় সই করেন ট্রাইব্যুনালের তিন বিচারক।
|রাতে ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার শহীদুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, মঙ্গলবার রাত সোয়া নয়টার দিকে নিজামীর মৃত্যু পরোয়ানাসহ পূর্ণাঙ্গ রায় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার, স্বরাষ্ট্র ও আইন মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট কার্যালয়গুলোতে পাঠানো হয়।

পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, রায় পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে আবেদন করার জন্য ১৫ দিন সময় পাবেন নিজামী। বুধবার থেকে এই দিন গণনা শুরু হবে।
আপিল বিভাগের রায় ঘোষণার প্রায় আড়াই মাস পর মঙ্গলবার বিকেলে নিজামীর মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়। ১৫৩ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ এই রায় লিখেছেন আপিল বিভাগের বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা। এই রায়ের সঙ্গে একমত হয়ে সই করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।
পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হওয়ার পর অ্যাটর্নি জেনারেল তাঁর নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, যদি ১৫ দিনের মধ্যে নিজামী রিভিউ আবেদন না করেন, তবে আইন অনুসারে দণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু করবে সরকার। আর যদি সময়মতো রিভিউ আবেদন করা হয়, তবে রায়ের কার্যকারিতা স্থগিত থাকবে। রিভিউ খারিজ হলে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের প্রক্রিয়া আবার শুরু হবে। সে ক্ষেত্রে সর্বশেষ সুযোগ হিসেবে আসামি রাষ্ট্রপতির কাছে অপরাধ স্বীকার করে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারবেন। প্রাণভিক্ষার আবেদন না করলে কিংবা আবেদন করার পর নাকচ হয়ে গেলে ফাঁসি কার্যকর করা হবে।


মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর নিজামীকে ফাঁসির আদেশ দিয়ে রায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল বলেছিলেন, নিজামী যে ঘৃণ্য অপরাধ করেছেন, মৃত্যুদণ্ড ছাড়া আর কোনো সাজা তাঁর জন্য যথেষ্ট নয়। ট্রাইব্যুনালের ওই রায়ের বিরুদ্ধে নিজামী আপিল করেন। গত ৬ জানুয়ারি ট্রাইব্যুনালের দেওয়া সর্বোচ্চ দণ্ড বহাল রাখেন আপিল বিভাগ।

পোস্টটি ফেসবুক এ শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ দিন। আপনার প্রয়োজনীয় সব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে প্রয়োজন২৪.কম পেইজ এ লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন।

Share Button