,

মোটরবাইক চালিয়ে বিয়ের আসরে কনে

bride-কনে

অনালাইন ডেস্ক: ‘বিয়ের কনে’এই শব্দটি শুনলেই আমাদের চোখে ভেসে ওঠে জড়োয়া গয়না আর ঝকমকে পরে লাজে রাঙা হয়ে বসে থাকা নারীর ছবি।

এই উপমহাদেশে সাধারণত পালকিতে বা সুসজ্জিত গাড়িতে চেপে বিয়ের আসরে আসেন কনে। তবে ভারতের আহমেদাবাদে ঘটেছে যে বাহনে চেপে কনে এসেছেন বিয়ের মণ্ডপে তা দেখে আশপাশের সবার রীতিমতো চক্ষু চড়কগাছ।

পালকি বা গাড়ি নয়, একেবারে মোটরবাইক চালিয়ে মণ্ডপে এসে হাজির হয়েছেন কনে। তাও যে সে বাইক নয়, ৩৫০ সিসির রয়্যাল এনফিল্ড বুলেট। এই মোটরবাইক চালিয়েই বিয়ের আসরে এসে বরের গলায় বরণমালা দিলেন ২৬ বছরের কনে আয়েশা উপাধ্যায়।

গত শুক্রবার বিয়ের দিন নির্ধারিত ছিল ব্যবসায়ী লৌকিক ভিয়াস ও কম্পিউটার সায়েন্স বিষয়ের অধ্যাপক আয়েশা উপাধ্যায়ের। ভারতীয় কনের মতো লেহেঙ্গা-চোলি আর সোনার গয়নায় সেজে র‍য়্যাল এনফিল্ড বুলেট মোটরবাইকে চেপে বিয়ের অনুষ্ঠানে আসেন আয়েশা।

আর নববিবাহিতা স্ত্রীর এই কাণ্ডে লজ্জিত নন বরং গর্বিত তাঁর স্বামী লৌকিক। পেশায় কম্পিউটার সায়েন্সের অধ্যাপক আয়েশা মাত্র ৯ বছর বয়স থেকে বাবাকে মোটরবাইক চালাতে দেখে অনুপ্রাণিত হন। ধীরে ধীরে মোটরবাইকের সঙ্গে ভালোবাসা তৈরি হয় তাঁর। মাত্র ১৩ বছর বয়সেই বাইকে চড়া অভ্যেসে পরিণত হয় আয়েশার। এখন তো বাইক চালায় এমন কিছু মানুষকে নিয়ে বাইকার বন্ধু দলও গড়েছেন তিনি।



মোটরবাইক চালানো শুরু করার পর থেকে আয়েশার পছন্দ ছিল রয়্যাল এনফিল্ড বুলেট। গেল বছর রাখি বন্ধন উৎসব উপলক্ষে ভাইয়ের কাছ থেকে একটি ৩৫০ সিসির রয়্যাল এনফিল্ড বুলেট মোটর বাইক উপহার পান আয়েশা।

এর পর পরই লৌকিকের সঙ্গে আয়েশার বিয়ে ঠিক করেন তাঁর মা-বাবা। আয়েশা সাফ জানিয়ে দেন, বিয়ের আসরে বাইক চালিয়ে যেতে চান তিনি। অবশ্য মেয়ের এই বায়নার কাছে হার মেনে নেন আয়েশার মা-বাবাও। ঠিক হয় বুলেট চালিয়েই মণ্ডপে পৌঁছাবেন আয়েশা।

নির্ধারিত সময় অনুযায়ী গত শুক্রবার বিয়ে হয় আয়েশা-লৌকিকের। বিয়ের আসরে উপস্থিত অতিথিদের সবাইকে অবাক করে দিয়ে বুলেট চালিয়ে হাজির হন আয়েশা। তবে অতিথিরা তাজ্জব হলেও নববধূর এই আগমনে মোটেও তাজ্জব হননি আয়েশার স্বামী লৌকিক ভিয়াস। তিনি বলেছেন, এটা বেশ মজার ব্যাপার। আমার স্ত্রী বাইক চালিয়ে বিয়ের আসরে আসায় আমি গর্বিত। বিয়ের আসরে উপস্থিত অতিথিদের সামনেই তিনি জানিয়েছেন, আগামী দিনে স্ত্রীর পছন্দকেই গুরুত্ব দিতে চান তিনি।

তবে লৌকিক নিজে বাইক চালাতে জানেন না। আর এ নিয়ে আফসোসের শেষ নেই তাঁর।

অবশ্য বিয়ের আসরেই আয়েশা কথা দিয়েছেন যে, স্বামী লৌকিককে নিয়ে নিজেই বাইক চালিয়ে যাবেন তিনি। দরকার হলে নিজে হাত ধরে লৌকিককে বাইক চালানোটাও শিখিয়ে দেবেন তিনি।

পোস্টটি ফেসবুক এ শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ দিন। আপনার প্রয়োজনীয় সব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতেপ্রয়োজন২৪.কম পেইজ এ লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন।

Share Button