,

‘মৃত্যুর পর, বেহেশতেও কি এরকম ২ টা লাইন থাকবে?’

mina



।।আরিফ আর হোসাইন।।

যেকোনো এয়ারপোর্টের ইমিগ্রেশানে, ২ টা লাইন থাকে

ইকোনমি ক্লাসের এক লাইন… বিজনেস ক্লাসের জন্য আরেক লাইন

বিজনেস ক্লাসের প্যাসেঞ্জাররা ফার্স্ট ট্র্যাক দিয়ে বের হয়ে আসে

… আচ্ছা, মৃত্যুর পর; বেহেশতেও কি এরকম ২ টা লাইন থাকবে?

অবশ্যই না!

তবে হজ্জের সময় ২টা ক্যাটাগরি কেন থাকে?

সৌদির রাষ্ট্রীয় অতিথি হয়ে যারা আসে, তারা মক্কা থেকে আরাফাত ময়দানে ট্রেনে চড়ে যেতে পারে।

রাষ্ট্রীয় অতিথি ছাড়া আর কেউ কিন্তু তা পারে না।

তারা হেলিকাপ্টার সার্ভিস পায় মিনায় যাওয়ার জন্য।

এদের একজনের সাথে থাকে কয়েকজন প্রটোকল।

এবার… এই ২০১৫ সালে কতজন এই ভিআইপি সার্ভিস পেয়েছিলেন জানেন?

৫১৩৯ জন!

এদের সার্ভিসই আলাদা।

আমি বুঝলাম না, যেখানে বেহেশতে গেলেও আমার এক লাইন করে ঢুকতে হবে সেখানে সৌদিতে হজ্জ নিয়ে কেন ভিন্ন লাইন?

body-taken-to-hospital


সৌদি ছাড়া বাকি সব মিডিয়া বলছে, গত পরশুর ঘটনায় যে প্রায় হাজার খানেক মানুষ মারা গেলো, তার মেইন কারণই হলো নবাবজাদা মুহাম্মাদ বিন সালমানের গাড়ি বহর।

তার বিপুল গাড়ি বহর ও নিরাপত্তা প্রহরা মিনার প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকা দখল করে নেয়… শাহজাদার সঙ্গে ছিল ২০০ সেনা ও ১৫০ পুলিশ কর্মকর্তা।

২০৪ নম্বর সড়ক থেকে ২২৩ নম্বর সড়কের সংযোগস্থল দিয়ে রাজপুত্রের গাড়ীবহন পার হওয়ার সময় হঠাৎ করেই কিছুক্ষণের জন্যে থামিয়ে দেয়া হয় হাজিদের মিছিল।

কিন্তু পেছন থেকে যারা আসছিলেন একই গতিতে, তাঁরা বুঝতে পারেননি এই থেমে যাওয়ার বিষয়টি।

প্রবল গতিতে তাঁরা সামনেই অগ্রসর হতে থাকেন… এ সময় মাঝখানের ভিড়ে পিষ্ট ও পদদলিত হন শত শত মানুষ … সামনে বা পেছনে যাওয়ার কোনো উপায় নেই তাদের, একমাত্র পরিণতি ছিল শ্বাসরুদ্ধ হয়ে যাওয়া।

সৌদি সরকার সুন্দর করে নবাবজাদার বিষয়টা চেপে গেছেন।

… আমার ছোটবেলায় প্রশ্ন আসতো মনে, “আচ্ছা পৃথিবীতে এতো যায়গা থাকতে কাবাশরীফটা, সৌদিআরবে কেন হলো?

উত্তরটা এখন একটু একটু পাচ্ছি।

যেখানে আল্লাহ্‌, বেহেশতে প্রবেশের ক্ষেত্রে কোনও ইকোনোমি বা বিজনেস ক্লাস করেনি, সেখানে পবিত্র কাবা শরিফের দেশ সৌদি, স্বয়ং হজ্জটাকেই নিয়ে অন্য লেভেলের এক ডিস্ক্রিপেন্সি করছে।

এই আরব দেশের মানুষেরই তো, বেশি বেশি করে মাফ চাওয়া দরকার…

উত্তরটা এখন একটু একটু পাচ্ছি।

আরিফ আর হোসাইন

আরিফ আর হোসাইন

‘ফেসবুক কর্ণার এ প্রকাশিত লেখা প্রয়োজন২৪ এর নিজস্ব প্রতিবেদন নয়, ফেসবুক ব্যাবহার কারীদের মতামত।’

Share Button