,

গোপন যে রোগের কথা কাউকে বলা যায় না, ঝুঁকিতে নারী পুরুষ

sad-woman

গোপন যে রোগের কথা কাউকে বলা যায় না, ঝুঁকিতে নারী পুরুষ।

সুস্থ জীবনের জন্য জেনে রাখা জরুরী এমন একটি বিষয় হলো যৌনরোগ। অনেকেইবিরক্ত হয়ে ভাববেন, আমি জেনে কী করবো? আমার তো কখনো এমন রোগ হবেইনা!বাস্তবতা কিন্তু অনেক কঠিন। আর তাই এসব রোগ সম্পর্কে জেনে রাখাটাও ভীষণজরুরী। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সাহায্য করেন ময়মসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তার লুৎফুন্নাহার নিবিড়।



ক্ল্যামাইডিয়ার ব্যাপারে খুব বেশি মানুষ জানেন না। না জানলেও এটি যৌনরোগ হিসেবে ছড়াতে পারে নারীপুরুষ উভয়ের মাঝেই। সময়মতো চিকিৎসা করা না হলে ইনফেকশন বাজে অবস্থায় পৌঁছাতে পারে। যা থেকে নারীর সন্তান ধারনে অক্ষমতার মতো জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। পুরুষের ক্ষেত্রে ইউরেথ্রা, এপিডাইডিমিস অথবা রেক্টামের ইনফেকশন দেখা দিতে পারে।

কী করে বুঝবেন ক্ল্যামাইডিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন আপনি? ক্ল্যামাইডিয়ায় আক্রান্ত হবার পর লক্ষণগুলো মোটামুটি ২-৩ সপ্তাহের মাঝে বোঝা যায়। মূলত নারীর যৌনাঙ্গ থেকে দুর্গন্ধযুক্ত সাদা তরল নিঃসরণ হতে দেখা যায়। মুত্রত্যাগের সময়ে, পিরিয়ডের সময়ে এবং শারীরিক সম্পর্কের সময়ে ব্যাথা, পিরিয়ড ছাড়াও রক্তক্ষরণ হতে পারে ক্ল্যামাইডিয়ার উপসর্গ। পুরুষের মাঝে যৌনাঙ্গ থেকে সাদাটে তরল নিঃসরণ এবং মুত্রত্যাগে ব্যাথা ছাড়াও একটি বা উভয় অন্ডকোষে ব্যাথা থাকতে পারে। এছাড়াও অ্যানাল সেক্সে অভ্যস্ত ব্যক্তিদের মলাশয় থেকে এমন তরল নিঃসরণ হতে পারে।

ক্ল্যামাইডিয়ায় আক্রান্ত হয়েছেন এমন সন্দেহ হলে অবশ্যই যৌন সম্পর্ক থেকে বিরত থাকতে হবে এবং ডাক্তার দেখিয়ে নিশ্চিত হতে হবে। যদি জানা যায় আপনার ক্ল্যামাইডিয়া হয়েছে তবে এর চিকিৎসা তো করাবেনই, পাশাপাশি আপনার সাথে যৌন সম্পর্ক ছিলো যার বা যাদের, তাদেরকে জানানো উচিৎ, যাতে তারা আপনার থেকে আক্রান্ত হয়েছেন কিনা তার ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে নেওয়া যায়।

ক্ল্যামাইডিয়া কীভাবে ছড়ায়? যেহেতু এটি যৌনরোগ, সুতরাং যৌন সম্পর্ক স্থাপনের সময়েই এটি ছড়ায়। ছড়াতে পারে অ্যানাল সেক্স থেকেও। এছাড়াও আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার জেনে রাখা দরকার ক্ল্যামাইডিয়ার ব্যাপারে। তা হলো গর্ভবতী মায়ের যদি ক্ল্যামাইডিয়া থেকে থাকে, তবে স্বাভাবিক ডেলিভারির সময়ে তার সন্তানের শরীরেও তা ছড়াতে পারে। মূলত শিশুর চোখে এভাবে ছড়াতে পারে ক্ল্যামাইডিয়া। তবে মায়ের ক্ল্যামাইডিয়া আছে জানতে পারা গেলে সার্জারির মাধ্যমে ডেলিভারি করা যেতে পারে, এতে শিশুতে ইনফেকশনের সম্ভাবনা থাকে না।



ক্ল্যামাইডিয়া হলে কী করা যেতে পারে? ক্ল্যামাইডিয়া এড়িয়ে চলার জন্যই বা কী করা যেতে পারে? ডাক্তার নিবিড়ের মতে, আপনিযদি জেনে থাকেন আপনার ক্ল্যামাইডিয়া আছে, তবে অবশ্যই যৌনসম্পর্ক হতে বিরত থাকুন। সকল পরিস্থিতিতে কনডম ব্যবহার করুন। আপনার যদিধারণা হয়ে আপনার বা আপনার পরিচিত কারও এই রোগ হয়েছে, তাহলে লজ্জা না পেয়ে খোলাখুলিকথা বলুন। ডাক্তারের কাছেও কিছু লুকোবেন না। একাধিক মানুষের সাথে যৌনসম্পর্ক থাকলে ছড়াবে এই রোগ। এ কারণে বিশ্বস্ত থাকুন জীবনসঙ্গীর প্রতি এবংকনডম ব্যবহার করুন সঠিকভাবে। যাদের ইতোমধ্যে একবার ক্ল্যামাইডিয়া হয়েছে তারা আরও বেশি সাবধান থাকুন কারণে তাদের এই রোগ পুনরায় হবার সম্ভাবনা বেশি। (source : priyo)

খবরটি ফেসবুক এ শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ দিন। আপনার প্রয়োজনীয় সব গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পেতে প্রয়োজন২৪.কম পেইজ এ লাইক দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকুন।

Share Button